রামুতে পুলিশের সন্ত্রাস বিরোধী অভিযান, জনমনে প্রশান্তি

আবদুল মালেক, রামু:
কক্সবাজারের রামুতে সন্ত্রাস বিরোধী বিশেষ অভিযান আরম্ভ করেছে পুলিশ।
রামুর জোয়ারিয়ানালা, কাউয়ারখোপ, গর্জনিয়া ও ঈদগড় ইউনিয়নের সীমান্তবর্তী ক্রাইম জোন নামে খ্যাত এ অভিযান চালানো হয়।
কক্সবাজারের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ( সদর সার্কেল) আদিবুল ইষলাম ও রামু থানার অফিসার ইনচার্জ আবুল খায়েরের  নেতৃত্বে ২০ অক্টোবর রবিবার দুপুর হতে এ অভিযান চালানো হয়। অভিযানে আরও অংশ নেই রামু থানার ওসি তদন্ত মিজানুর রহমান।
দুপুর হতে চালানো অভিযানে কেউ গ্রেফতার না হলেও  গহীন অরণ্য হতে সন্ত্রাসীদের তিনটি অাস্তানা ধ্বংস করে দেওয়া হয়।
রামু থানার অফিসার ইনচার্জ আবুল খায়ের এ অভিযানের সত্যতা নিশ্চিত করে জানান,এই সকল গহীন অরণ্যে সন্ত্রাসী ও অপহরণকারীরা আস্তানা গড়েছে বলে তাদের কাছে অভিযোগ রয়েছে।এই সূত্র ধরে তারা অভিযান পরিচালনা করে।এই অভিযান পরিচালনার সময় স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও তাদের সাথে অভিযানে অংশ নেই।অভিযানে প্রায় অর্ধ শতাধিক পুলিশ ও স্থানীয় জনগণ অংশ গ্রহণ করে।অভিযানের প্রথম দিনই সব আস্তানা চিহ্নিত করা হয় এবং তিনটি মিনি আস্তানা গুড়িয়ে দেওয়া হয়।
কক্সবাজারের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) আদিবুল ইসলাম জানিয়েছেন- অভিযান চলবে। কোন সন্ত্রাসীই ছাড় পাবে না। সন্ত্রাসীদের পক্ষে কেউ তদবির করলে তাদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
এই অভিযানের ফলে অত্র অঞ্চলের মানুষের মনে কিছুটা হলেও সস্ত্বির সুবাতাস বইছে।তারা দাবী জানান যতদিন পর্যন্ত রামুকে সন্ত্রাস ও অপহরণকারীদের কবল হতে মুক্ত করা যাবে না ততদিন পর্যন্ত যাতে এ অভিযান অব্যাহত থাকে।